Loading...

রায়গঞ্জ: ফের সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার করে নাবালিকাকে হুমকি। আর তার জেরেই প্রাণ হারানোর মুখে দশম শ্রেণির ছাত্রী। প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রযুক্তির সাহায্যে নাবালিকার অশ্লীল ছবি ভাইরাল করে দেয় যুবক, যার জেরে সম্মানহানির ভয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে নাবালিকা। আপাতত উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সে। ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রায়গঞ্জে।

মূল ঘটনাটি রায়গঞ্জের বিন্দোল এলাকার। অভিযোগ, দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে নিয়মিত উত্যক্ত করত বাবলু আলি নামের স্থানীয় ওই যুবক। পেশায় শ্রমিক বাবলু দিল্লিতে কাজ করত। এবার বাড়ি ফিরে এসেই ওই নাবালিকাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় বাবলু। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে নাবালিকা। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় অভিযুক্ত। তখন অবশ্য তাতে কর্ণপাত করেনি দশম শ্রেণির ছাত্রী।

গত ২৯ জুন নাবালিকার মামার মোবাইলে একটি অশ্লীল ছবি পাঠানো হয় অজানা নম্বর থেকে। ছবিটি দেখার পরই সম্মানহানির ভয়ে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেয় ওই নাবালিকা। এরপরই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে প্রথমে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এখন সেখানেই চিকিৎসা চলছে তাঁর। এখনও পলাতক অভিযুক্ত। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্তের খোঁজে চলছে তল্লাশি। অভিযুক্তের শাস্তি দাবি করছেন স্থানীয়রাও। সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়েদের ছবি ছড়িয়ে বদনাম করার প্রচেষ্টা নতুন কিছু নয়। এই ধরণের ঘটনা আকছার ঘটছে। যুবসমাজের মধ্যে সাইবার অপরাধ প্রবণতায় রীতিমতো উদ্বিগ্ন ওয়াকিবহাল মহল।

Loading...